আফগানিস্তান বনাম পাপুয়া নিউ গিনি পূর্বাভাস ১৩/০৬/২০২৪ সন্ধ্যা ৭:৩০ ক্রিকেট

২০২১–২২ পাপুয়া নিউ গিনি ক্রিকেট দলের ওমান সফর

২০২১ সালের সেপ্টেম্বরে, পাপুয়া নিউ গিনি পুরুষ ক্রিকেট দল ওমান সফর করে যেখানে তারা নেপাল ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে দুটি করে একদিনের আন্তর্জাতিক (ওডিআই) ম্যাচ খেলেছিল। এই সফরটি ২০১৯-২০২৩ আইসিসি পুরুষ ক্রিকেট বিশ্বকাপ লিগ ২-এর প্রস্তুতি হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ছিল।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বনাম পাপুয়া নিউ গিনি

এই সিরিজটি ৬ সেপ্টেম্বর থেকে ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়েছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র পুরো সিরিজ জুড়ে প্রভাব বিস্তার করে এবং ২-০ ব্যবধানে জয়ী হয়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রপাপুয়া নিউ গিনি
  • সৌরভ নেত্রাবলকর (অধি.)
  • অ্যারন জোনস (সহ-অধি.)
  • জাসকরন মালহোত্রা (উই.)
  • আসাদুল্লাহ ভালা (অধি.)
  • চার্লস আমিনি (সহ-অধি.)
  • কিপলিন দোরিগা (উই.)

৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, পাপুয়া নিউগিনি বনাম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

পাপুয়া নিউগিনি স্কোর: ১৫৮ (৪৪.২ ওভারে)

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র স্কোর: ১৫৯/৩ (২৮.২ ওভারে)

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৭ উইকেটে জয়ী

৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বনাম পাপুয়া নিউগিনি

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র স্কোর: ২৭১/৯ (৫০ ওভারে)

পাপুয়া নিউগিনি স্কোর: ১৩৭ (৩৭.১ ওভারে)

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৩৪ রানে জয়ী

নেপাল বনাম পাপুয়া নিউ গিনি

নেপাল এবং পাপুয়া নিউ গিনির মধ্যে সিরিজটি ৭ সেপ্টেম্বর থেকে ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়। নেপাল তাদের কৌশলগত দক্ষতার মাধ্যমে ২-০ ব্যবধানে সিরিজটি জিতেছে।

নেপালপাপুয়া নিউ গিনি
  • জ্ঞানেন্দ্র মল্ল (অধি.)
  • দীপেন্দ্র সিং আইরি (সহ-অধি.)
  • রোহিত কুমার পৌডেল
  • আসাদুল্লাহ ভালা (অধি.)
  • চার্লস আমিনি (সহ-অধি.)
  • কিপলিন দোরিগা (উই.)

৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, পাপুয়া নিউগিনি বনাম নেপাল

পাপুয়া নিউগিনি স্কোর: ১৩৪ (৩৩ ওভারে)

নেপাল স্কোর: ১৩৫/৮ (৩৯.৩ ওভারে)

নেপাল ২ উইকেটে জয়ী

১০ সেপ্টেম্বর ২০২১, নেপাল বনাম পাপুয়া নিউগিনি

নেপাল স্কোর: ২৩৩ (৪৯.২ ওভারে)

পাপুয়া নিউগিনি স্কোর: ৮২ (১৯.১ ওভারে)

নেপাল ১৫১ রানে জয়ী

প্রদর্শন পূর্বানুমান

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক ব্যবধানে জয় এবং তাদের শক্তিশালী ব্যাটিং ও বোলিং আক্রমণ দেখে বোঝাই যাচ্ছে যে তারা পাপুয়া নিউ গিনির চেয়ে এগিয়ে। জাসকরন মালহোত্রার অসাধারণ পারফরম্যান্স, যিনি ১৭৬ রান সংগ্রহ করেছেন এবং সিরিজের সর্বাধিক রান সংগ্রাহক হয়েছেন, মার্কিন দলকে আরো দৃঢ় করেছে। অন্যদিকে, নিসর্গ প্যাটেলের ৫ উইকেট নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বোলিংও সমানভাবে শক্তিশালী হয়েছে।

পাপুয়া নিউ গিনির জন্য আসাদুল্লাহ ভালা এবং ডেমিয়েন রাভু সবচেয়ে ভালো পারফর্মার ছিলেন, কিন্তু তাদের পারফরম্যান্স যথেষ্ট ছিল না। তাদের ব্যাটিং লাইন আপ সেরকম কোন উল্লেখযোগ্য রানের সংগ্রহ করতে পারেনি, যা তাদের জন্য বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

নেপালের বোলিং আক্রমণ সন্দীপ লামিছানেলের নেতৃত্বে সাফল্যের চেয়ে এগিয়ে যায়। তার ১০ উইকেট এবং রোহিত কুমার পৌডেলের ১২৭ রান তাদের সহজেই পাপুয়া নিউ গিনির উপরে প্রাধান্য এনে দেয়।

পাপুয়া নিউ গিনির প্রধান সমস্যা ছিল তাদের নিম্নমানের ব্যাটিং পারফরম্যান্স। চার্লস আমিনি ও আসাদুল্লাহ ভালা ছাড়া অন্য কোন খেলোয়াড়ই উল্লেখযোগ্য রান করতে পারেননি। চাদ সোপারের ৫ উইকেট নিয়ে বোলিং সেকশনে কিছুটা উজ্জ্বলতা আসলেও, সেটি পর্যাপ্ত ছিল না।

যদিও পাপুয়া নিউ গিনি কিছু ভাল খেলোয়াড় রয়েছে, তা সত্ত্বেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং নেপালের বিপরীতে তাদের সাফল্যের সম্ভাবনা কম। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাসকরন মালহোত্রার এবং নেপালের সন্দীপ লামিছানেলের সাক্ষাতকুশলতা এবং সামগ্রিক টিম পারফরম্যান্সের কারণে পরবর্তী ম্যাচগুলোতেও তাদের প্রতি অগ্রাধিকার দেওয়া যায়।

আমাদের পূর্বানুমান অনুযায়ী, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং নেপাল আবারো পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে জয়লাভ করবে, সম্ভবত কিছু সফটমোমেন্ট হতে পারে, কিন্তু সেটি পাপুয়া নিউ গিনির পুরো সাফল্যের জন্য পর্যাপ্ত হবে না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।